মঙ্গলবার, ১৯ অক্টোবর ২০২১, ১১:৩৪ অপরাহ্ন
শিরোনাম :

”জিবনের কিছু কথা”অনাথ কবি সুজন বিশ্বাস-দৈনিক বাংলার আলো ২৪

সম্পাদকীয়ঃ / ১৯৮ বার পঠিত
আপডেট : সোমবার, ৬ সেপ্টেম্বর, ২০২১, ১০:৪১ অপরাহ্ণ
স্বাধীন বাংলার অনাথ কবি শ্রী সুজন বিশ্বাস।

প্রথমে আমি অনাথ কবি কাব্যগ্রন্থটির পিছনের কিছু কথা তুলে ধরতে চায় ।
এই অনাথ কবি কাব্যগ্রন্থটির অনাথ আমি নিজে ।

আমি যখন আমার একটা লেখা প্রকাশ করার জন্য অসংখ্যা দ্বারে দ্বারে ঘুরেছি ,
জাতীয় প্রেসক্লাবে অবস্থান কর্মসূচি দিয়েছি ।
কিন্তু কেউ একটা কবিতা প্রকাশ করে দেয়নি ।
তাই জীবনের অদম্য ইচ্ছা থেকে নিজে হিমছড়ি প্রকাশনীর প্রতিষ্ঠাতা
সভাপতি হয়ে জীবনের প্রথম কাব্যগ্রন্থ বের করলাম অনাথ কবি নামে ।
এই কাব্যগ্রন্থটির মধ্যে আমি আমার জীবনের সাথে
ঘটে যাওয়া সমস্থ কিছুর বিবরণ দিয়ে গিছি ।
আর সুস্পষ্ট ভাবে তুলে ধরেছি রাষ্ট্রের ষড়যন্ত্র কারীদের মুখোশ।
বাংলার মানুষকে জনজাগরণের আহবান রেখেছি প্রত্যকটা স্থরে ।
দেশের মানুষকে স্বাধীনতা বিরোধীদের বিপক্ষে সংঘবদ্ধ থাকার আহবান রেখেছি ।
আমার এই কাব্যগ্রন্থটি নবজারণের বড় হাতিয়ার হিসাবে কাজ করবে ।
সমস্থ অনাথ লেখক ও কবিদের অনুপ্রেরণার উৎস হিসাবে কাজ করবে ।
তাছাড়া গ্রন্থটিতে আমার ৫ বছরের বাড়ি না ফেরার গল্প বলা হয়েছে ।
বলা হয়েছে ৫ বছরে মা ,বাবা ও ৪ বছরের সন্তানকে না দেখার আর্তনাদের কথা ।
তুলে ধরেছি আমার ভালবাসার ঘর ভাঙনের গল্প ।
আজ আমি একজন কবি ,নাট্যনির্মাতা ও গনমাধ্যমে হিসেবে দাড় করানোর
প্রধান উৎস দাতা বঙ্গবন্ধু কন্যা জননেত্রী শেখ হাসিনা ।
কারণ ওনার সাথে দেখা করার জন্য আমি ৭৯ বার চেষ্টা করেছি ৫ টা বছর বাড়ি ফিরে নাই।
সেই অনুরাগ থেকে আমার এই প্রত্যকটা শদ্ব সৃষ্টি ।
আর এই লেখনি জীবনের যিনি প্রথম পথ দেখিয়ে ছিলেন ।
তিনি আমার শ্রেদ্ধায় কাকা আদ্বুল মুজিদ মুন্সী ।
আমার প্রত্যকটা কবিতার শদ্ব বাঁচিয়ে রাখার জন্য ।
এই পর্যন্ত যিনি সবকিছু হারিয়ে আমাকে দাড় করানোর জন্য কাজ করে যাচ্ছে ।
তিনি আমার পরম বান্ধব মিঠুন বিশ্বাস ।
জানি না মিঠুন দাদার স্বপ্ন আমি পূরণ করতে পারবো কি না ।
তবে তিনি আমাকে বলে কলম চালায় যা মানুষের কল্যাণে।
বন্ধু টা এখনো আমার জন্যই রিকশা চালায় আমার কলমকে বাঁচায় রাখার জন্য ।
আরেক জন ব্যক্তি যিনি চান সুজন বিশ্বাস প্রকাশ ঘটুক যার জন্য
 যিনিসারবিক সহযোগিতা করেছেন তিনি বড় ভাই আদ্বুল রাসেল ।
আমার সমস্থ প্রাপ্তির মালিক আমার মা,বাবা
যারা শ্রী সুজন বিশ্বাসকে সৃষ্টি করেছে ।
আর যিনি আমার কলমকে কঠিন থেকে কঠিন স্থনে রূপান্তরিত করে গেছেন ।
তিনি হলেন আমার স্ত্রী মিথী রানী ।
যেখানেই ও থাকুক না কেন ও যেন ভাল থাকে ।
আমি অনাথ ও আমার ছেলে অনাথ দুই অনাথে মিলে জীবন তরী পাড়ি দিয়ে দিব ।


আপনার মতামত লিখুন :

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এ জাতীয় আরও খবর পড়ুন
Theme Customized By Theme Park BD