বৃহস্পতিবার, ০৭ জুলাই ২০২২, ০২:১২ পূর্বাহ্ন
শিরোনাম :
Logo পদ্মা সেতুর দুই থানা উদ্বোধন করলেন প্রধানমন্ত্রী-দৈনিক বাংলার আলো Logo বন্যায় দেশে ৩৬ জনের মৃত্যু-দৈনিক বাংলার আলো Logo সিরাজগঞ্জে আহার করতে গিয়ে প্রাণ হারালো সাত ফুট লম্বা এক বিষেধর সাপ Logo এবার করণায় আক্রান্ত সংস্কৃতি প্রতিমন্ত্রী-দৈনিক বাংলার আলো Logo পাবনায় গৃহবধূর আত্মহত্যা – দৈনিক বাংলার আলো Logo তাড়াশে সাংবাদিক মজিবুর রহমানকে পিস্তল ঠেকিয়ে অপহরণ করে হত্যার চেষ্টা! Logo অবৈধ ক্লিনিক-ডায়াগনস্টিক সেন্টার ৭২ ঘণ্টার মধ্যে বন্ধের নির্দেশ Logo বাংলাদেশে তেল বিক্রির প্রস্তাব দিয়েছে রাশিয়া : জ্বালানি প্রতিমন্ত্রী Logo যমুনায় বিলীন হলো পাঁচ শতাধিক ঘরবাড়ি Logo জামালপুরে জেলা ও শহর যুবদলের দোয়া-মিলাদ মাহফিল

সিরাজগঞ্জে তাড়াশে ইউনিয়ন চেয়ারম্যান দুর্নীতির দায়ে বরখাস্ত।

তাড়াশ প্রতিনিধিঃ / ১৩৭ বার পঠিত
আপডেট : শনিবার, ২১ আগস্ট, ২০২১, ৩:৫২ পূর্বাহ্ণ
বরখাস্ত হওয়া  ইউপি চেয়ারম্যান টিএম আব্দুল্লাহেল বাকী।

সিরাজগঞ্জের তাড়াশে মাননীয় প্রধানমন্ত্রীর দেওয়া গরীব দুঃখী মানুষের জন্য বরাদ্দকৃত  আশ্রয়ণ প্রকল্পের ঘর দেওয়ার নাম করে অর্থ নেওয়ার অভিযোগে উপজেলার ৩ নং সগুনা ইউনিয়ন পরিষদ চেয়ারম্যান টি,এম, আব্দুল্লাহেল বাকী কে সাময়িকভাবে বরখাস্ত করা হয়েছে।

নির্ভর সুত্রমতে জানা যায় গত বুধবার স্থানীয় সরকার পল্লী উন্নয়ন ও সমবায় মন্ত্রণালয়ের স্থানীয় সরকার বিভাগ, ইউপি-১ শাখার উপ-সচিব মো. আবু জাফর রিপন স্বাক্ষরিত পত্রে তাকে সগুনা ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান পদ থেকে সাময়িক  বরখাস্ত করেন।

দুর্নীতির দায়ে ৩ নং সগুনা ইউনিয়ন এর চেয়ারম্যান টি,এম,আব্দুল্লাহেল বাকী কে সাময়িক ভাবে  বরখাস্ত করার বিষয়টি  উপজেলা নির্বাহী অফিসার জনাব মেজবাউল করিম  নিশ্চিত করেছেন। তিনি আরও জানান, সাময়িক বরখাস্ত হওয়া সগুনা ইউনিয়ন পরিষদ চেয়ারম্যান টি,এম, আব্দুল্লাহেল বাকী কে পাশাপাশি স্থানীয় সরকার বিভাগ থেকে কারণ দর্শানো চিঠিও দেওয়া হয়েছে।

এদিকে স্থানীয় সরকার বিভাগের ইউপি-১ শাখার উপ-সচিব মো. আবু জাফর রিপন স্বাক্ষরিত ওই পত্রে আরও উল্লেখ করা হয়েছে যে, সিরাজগঞ্জ জেলার তাড়াশ উপজেলাধীন সগুনা ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান টিএম আব্দুল্লাহেল বাকী কর্তৃক সংঘঠিত অপরাধমূলক কার্যক্রম পরিষদসহ জনস্বার্থের পরিপন্থী বিবেচনায় এবং স্থানীয় সরকার (ইউনিয়ন পরিষদ) আইন, ২০০৯ এর ধারা ৩৪ (৪) (খ) ও (ঘ) অপরাধ সংঘঠিত করায় ৩৪ (১) অনুযায়ী উল্লেখিত ইউপি চেয়ারম্যানকে তার স্বীয় পদ হতে সাময়িক বরখাস্ত করা হলো।

বরখাস্ত হওয়া  ইউপি চেয়ারম্যান টিএম আব্দুল্লাহেল বাকী জানান, আমি এখনো সাময়িক বরখাস্তের চিঠি পাইনি পেলে তবে নিশচিত ভাবে বলতে পারবো।

৩ নং সগুনা ইউনিয়ন এর চেয়ারম্যান টি,এম আব্দুল্লাহেল বাকীর সাময়িক বরখাস্তের বিষয় টি জানাজানি হওয়ার সঙ্গে সঙ্গেই স্থায়ী বরখাস্তের জন্য প্রতিক্রিয়া জানায় অত্র ইউনিয়নের সচেতন মহল দেশ প্রেমী মানুষ গুলো।

এলাকাবাসী আরো জানিয়েছেন যে,টি, এম,আব্দুল্লাহেল বাকী চেয়ারম্যান হওয়ার পর থেকেই এলাকায় নানা ধরনের অনিয়ম ও দুর্নীতি দাপটের সঙ্গে করেছেন। নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক একজন ভুক্তভোগী বলেন, কাজের বিনিময়ে খাদ্যের নামে শতশত মানুষের  নিকট থেকে ৩০০০থেকে ৪০০০ হাজার টাকা নিয়ে আমাদের কাজ করার  সুযোগ করে দিয়েছে,তবে বেশির ভাগ মানুষই টাকা দিয়ে তার হয়রানির স্বীকার হতে হয়েছে।

৩নং সগুনা ইউনিয়ন এর (১) এক নাম্বার ওয়ার্ডের একাধিক জনগণ বলেছেন,টি,এম, আব্দুল্লাহেল বাকী চেয়ারম্যান এর হাতে গোনা কতিপয় অসাধু লোক এলাকাজুড়ে ত্রাসের রাজত্ব কায়েম করেছেন। অসহায় নিরীহ বেশ কিছু ব্যবসায়ীর নিকট থেকে নানা কারনে অকারনে দীর্ঘদিন যাবৎ তার কিছু লোকজন  চাঁদাবাজী সহ ও সন্ত্রাসী কার্যকলাপ চালিয়ে যাচ্ছে। এলাকাবাসী জানিয়েছেন তার বাহিনীর ভয়ে সরাসরি মুখ খুলতে সাধারণ জনগণ ভীতসন্ত্রস্ত।এলাকায়  কোন বিচার শালিশ সাধারণ প্রধান মাতবর পরিচালিত করতে হিমশিম খেতে হয় তার বাহিনীর ভয়ে।
৩নং সগুনা ইউনিয়নের জনসাধারণ বলেন, বাংলাদেশ আজ উন্নয়নের রোল মডেল জননেত্রী শেখ হাসিনা বলেছেন, প্রতিটি গ্রাম হবে শহর মত,গ্রামের মানুষ সকল উন্নয়নের ছোঁয়া পাবে।কিন্তু দুঃখ ভারাক্রান্ত হৃদয়ে সাধারণ জনগণ বলেন,করোনাভাইরাসের তীব্র প্রকট সময়ে জননেত্রী শেখ হাসিনা অসহায় ও খেটে খাওয়া মানুষের জন্য  প্রনোদনার টাকা সহ নানা নিত্য প্রয়োজনীয় খাদ্য সামগ্রী দিয়েছেন। এতো প্রনোদনার টাকা সহ নানা সামগ্রিক কারা পেল? খতিয়ে দেখার জন্য কতৃপক্ষের নিকট আবেদন জানান।
শুধু তাই নয় তার বিরুদ্ধে বিধবা ভাতা,প্রসুতি ভাতা,বয়স্ক ভাতা,দুস্থ ভাতা,পঙ্গু ভাতা সহ নানা ধরনের দুর্নীতির অভিযোগ মানুষের মুখে মুখে আলোচনা ও সমালোচনার ঝর উঠেছে। তবে, তার বাহিনীর ভয়ে সাধারণ মানুষ প্রকাশ্যে কিছু বলতে নারাজ।কারন জানতে চাইলে বেশির ভাগ মানুষ মন্তব্য করেন,তার পেছনে উপর মহলের হাত আছে,সেই জন্যই আমরা কিছু বলতে চাই না।সরজমিনে তদন্ত করলে আরো অনেক কিছুই প্রকাশ পাবে বলে সাধারণ জনগণ জানিয়েছেন।
টিিএম. আব্দুলাহেল বাকীর তাড়াশের কিছু নেতাদের সাথে বোতলের সম্পর্ক থাকায় সাধান জনতা ভয়ে কাতর । বিষয়টি সরেজমিনে দেখাযায় তার পরিষদের দোতালায় চলে মদ ও মেয়ে নিয়ে অবৈধ কার্যক্রম যেটা এলাকার সচেতন মহল সহ বিভিন্ন মিডিয়া কিন্ত তাড়াশের ক্ষমতায় কোন প্রতিকার করা যায় নি। আরো যানা যায় গ্রামের খাল ডোবা মসজিদের হলেও  সে চেয়ারম্যান হবার পরে তাড়াশ উপজেলার আ”লীগের কার্যকারি কমিটির এক সদস্য কে সাথে নিয়ে নাটোকিয় ভাবে বিক্রি করে লক্ষ ধিক টাকা  আত্বসাত করেছেন।
আর  চেয়ারম্যানকে লিট দিয়েছে তাড়াশে অযোগ্য এক আওয়ামী সদস্য তার সথে বিএন পি, জামাত শিবিরের  ছেলে পেলে এবং দিঘিসগুনা গ্রামের আরেক মহল্লা দ্যসু যে কারনে নিরব ভূমিকায় সাধারন মানুষ দেখেছেন।
তার এক চাচা এক চোখে সমস্যা নিয়েই নায়েব অফিসের বড় অফিসার তার গামছা গলায় থাকে কিন্তু মানবতা পকেটে নিয়ে গামছার আড়ালে দাগ খতিয়ানের পর্চা পারা পার করে যেটা সার্ভেয়ার দেখে ও না দেখার ভান ধরে থাকেন বলে জানা গেছে।


আপনার মতামত লিখুন :

Leave a Reply

এ জাতীয় আরও খবর পড়ুন

ফেসবুকে আমরা

Theme Customized By BD It Host
%d bloggers like this:
%d bloggers like this: